Home / Breaking News / কবি সোনালী আদক এর “মাতৃদুগ্ধের ঋণ”

কবি সোনালী আদক এর “মাতৃদুগ্ধের ঋণ”

মাতৃদুগ্ধের ঋণ
১/৮/২১
সোনালী আদক

বারংবার আসি ফিরে
উদাসীনতার চাদর ঘিরে
জর্জরিত স্মৃতির ভিড়ে
মায়ের সেই ছোট্ট নীড়ে।

মা যে আমার বহু দূরে
মা বীণা একা ভবঘুরে
মায়ের ছায়া বক্ষ পুড়ে
মাতৃ স্মৃতি হৃদয় জুড়ে।
মা আমার স্বর্গ বাসী
মায়ের ঠোঁটের মিষ্টি হাসি
মাকে আজও ভালোবাসি
মায়ের প্রাণে বেঁচে আছি।
মা ভিন্ন একাকী এ ভুবনে
মাতৃ হারা শোকস্তব্ধ জীবনে
মাকে ভুলি হায় কেমনে
মা বিরাজে মনে প্রাণে।

মায়ের বহুমূল্য শরীরটাকে
রেখে এলাম গঙ্গার ঘাটে
মাকে সাজিয়ে নিজের হাতে
তুলে দিলাম ফুলের খাটে।
পুত্রহীন মায়ের ছেলে হলাম
মুখাগ্নি নিজের হাতেই দিলাম আমি বড়ো নিরূপায় ছিলাম
মায়ের দুঃখে জ্ঞান হারালাম।
চোখ খুলে দেখি সব শেষ
ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন মা শেষমেষ
কীভাবে ভুলি মার সেই বেশ
ছাই চাপা মোর কষ্টের রেশ।

মেয়ে জন্ম মায়ের এ বংশে
সামিল হলাম মায়ের ধ্বংসে
আমার হাতে মার নাভীঅংশে
চরম পরিস্থিতি বিবেকদংশে।
মায়ের শরীরের হাড়ের চিহ্ন
ভয়াল মুহূর্তে আমি জরাজীর্ণ
মলিন মায়ের শরীর নিশ্চিহ্ন
আতঙ্কে মায়ের দুঃখে শীর্ণ।
মাগো আমি বড়ো একাকী
নাওনা ওমা আমায় ডাকি
চোখের জলে যে রোজ ভাসি
আজো তোমায় ভালোবাসি।

ধীরে ধীরে মা হলো বিলীন
চোখে ভাসে বেদনার ঐ দিন
স্মৃতির পাহাড় হয়নি ক্ষ্মীন
ভুলি কেমনে মাতৃদুগ্ধের ঋণ।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com