Breaking News
Home / Breaking News / সন্তান হারানো এক মায়ের আর্তনাদ

সন্তান হারানো এক মায়ের আর্তনাদ

এম. আর হারুনঃ

২০১৬ সালের ১৪ মার্চ হেজবুত তওহীদের একটি অবিস্মরনীয় দিন। নোয়াখালীর সোনাইমুড়িতে ধর্মব্যবসায়ীদের উস্কানীতে সন্ত্রাসীদের পৈশাচিক হামলায় নির্মমভাবে শহীদ হয়েছিলেন দুই মর্দে মোজাহিদ। তাদেরই একজন শহীদ সোলায়মান খোকন। যার আত্যপ্রবনতা ছিলো ইসলামের প্রতীক। নিজের অর্থ সম্পদ উৎস্বর্গ করে দিতেও কৃপনতা করেননি তিনি। যার অন্তরে গাঁথা ছিলো ইসলামের প্রতি দুর্লব ভালোবাসা। গত বছর ৬ নভেম্বর রাজধানীর কে আই বিতে হেজবুত তওহীদ আয়োজিত এক নারী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। হয় স্মৃতিচারন অনুষ্ঠান। সেখানে হৃদয়বিদারক দৃশ্যে পরিনত হয় সহস্রাধিক হেজবুত তওহীদের সদস্য ও সদস্যা বৃন্দের। শহীদ সোলায়মানের মা যখন সন্তানের স্মৃতিচারন করেছিলেন তখন তিনি একা নন,কেঁদে উঠেছিলো পুরো গ্যালারী। এক শহীদের মার কান্না বৃথা যাবেনা। শহীদ সোলায়মান খোকনের মতো কিছু যুবকের আত্মত্যাগের মধ্য দিয়ে রচিত হবে সারা বাংলায় পুরো ইতিহাস,গড়ে উঠবে নতুন সভ্যতা। চারিদিকে ছড়িয়ে পড়বে ধর্ম ব্যবসায়ীদের কালো থাবা, মুসলমানরা হবে সচেতন। ধর্ম ব্যবসায়ীদের হামলায় হাসপাতালে নিহত শহীদ সোলায়মান খোকনের মা তার কান্না জড়িত বক্তৃতায় বলেন, হেজবুত তওহীদের ইসলামিক আন্দোলনের নির্দেশে ঘরের আসবাবপত্র ও নিজস্ব ভূমি বিক্রয় করে হলেও আন্দোলনে যোগদান করে ইসলামের পথে শহীদ হয়েছেন। আমার ছেলেকে এমন নির্মমভাবে হত্যা করেছে ঐ ধর্মব্যাবসায়ীরা তা আমি মেনে নিতে পারছি না। তিনি বলেন আপনাদের সন্তানদের দেশ তথা মানবজাতির কল্যানে নিয়োজিত রাখবেন। তিনি আরো বলেন, আমার ছেলে খোকন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়তো, খোকন ছিলেন কচুয়া উপজেলার হেজবুত তওহীদের আমির। নিজের সব কাজ ফেলে আমিরের দায়িত্ব অক্ষরে অক্ষরে পালন করতো। হাসপাতালে চিকিৎস্বাধীন অবস্থায় খোকন মারা যায়, মারা যাওয়ার পুর্বে তার বড় বোন ইলা ইয়াসমিনকে সাহস যুগিয়েছিলেন। কান্না জড়িত কন্ঠে এ বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি আজো শহীদ সোলায়মান খোকনের স্মৃতি ভুলতে পারছেন না। এ সময় রাজধানীর কে আই বিতে আগত সকল সদস্য ও সদস্যাবৃন্দ কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন, মুহুর্তে স্তব্দ হয়ে পড়ে বিশাল নারী সন্মেলনের কেন্দ্র। বর্তমানে সময়ে শহীদ সোলায়মান খোকনের বড় বোন হেজবুত তওহীদের চট্টগ্রাম বিভাগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ইলা ইয়াসমিন শহীদ সোলায়মান খোকনের নামে একটি ফাউন্ডেশন তৈরী করেন, তবে এখনো তার আনুষ্ঠানিক পথচলা শুরু হয়নি। আগামীতে এ ফাউন্ডেশনের সকল কার্যক্রম চালু হবে বলে জানা যায়।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com