Breaking News
Home / Breaking News / সদ্যপ্রসূত নাতীর মরদেহ দেখতে গিয়ে নিজেই লাশ হয়ে ফিরলেন দাদী!

সদ্যপ্রসূত নাতীর মরদেহ দেখতে গিয়ে নিজেই লাশ হয়ে ফিরলেন দাদী!

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
জন্মের পরই মারা যাওয়া নাতির মরদেহ দেখতে গিয়ে নিজেই মরদেহ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন দাদী! এমনটাই ঘটেছে কক্সবাজার সদর উপজেলার উপকূলীয় ইউনিয়ন পোকখালীর মধ্যম নাইক্ষ্যংদিয়া এলাকায়।

সড়ক দূর্ঘটনার শিকার হয়ে নিহত দাদীর সাথে একই পরিবারের আরও ৫ সদস্য আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে কয়েকজন শিশুও রয়েছে।

শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে ঘটা ওই ঘটনায় নিহত নূর আয়েশা (৭০) একই এলাকার মৃত আলতাজ আহমদের স্ত্রী।

দূর্ঘটনায় আহতদের মধ্যে আছেন মৃত আলতাজের ছেলে নুরুল আলম, বদি আলমের স্ত্রী রোজিনা আক্তার, মোহাম্মদ আলমের স্ত্রী মরিয়ম বেগম, মৃত ইসমাঈলের মেয়ে রশিদা বেগম, মৃত আলতাজ আহমদের মেয়ে রাবিয়া বেগম। তবে শিশুদের নাম জানা যায়নি।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, নুর আয়েশা বেগমের এক ছেলে পার্শ্ববর্তী খুটাখালীতে বসবাস করেন। ওই ছেলের স্ত্রীর প্রসব বেদনা শুরু হলে দ্রুত ঈদগাঁওস্থ একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে রাতেই জন্ম নেয় এক নবজাতক। একইদিন সকালে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে শিশুটি। এই খবর পেয়ে নিহত নুর আয়েশা বেগমসহ পরিবারের অন্যরা মৃত নাতীকে দেখতে ইজিবাইকে (টমটম) ঈদগাঁওস্থ ওই হাসপাতালে দেখতে যাচ্ছিলেন। প্রথিমধ্যে নাইক্ষ্যংদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছাকাছি পৌছলে টমটম চালক বেপরোয়া গতিতে চালালে গাড়ীটি সড়কের পাশে পরিত্যক্ত একটি পুকুরে পড়ে ডুবে যায়।

সূত্র মতে, টমটম যাত্রীদের চিৎকারে এলাকার লোকজন এগিয়ে এসে দ্রুত উদ্ধার করে তাদের হাসপাতালে পাঠানো হয়। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক নুর আয়েশাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অন্যরা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বলে পারিবারিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার মোহাম্মদ আলমও ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, নিহত নুর আয়েশা বেগমকে দাফন করা হয়েছে। আহত কয়েকজন প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরেছেন। দুইজনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদের ডুলাহাজারা খ্রিষ্টান মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com