Home / Breaking News / মতলবে এস এস সি পরীক্ষার্থীদের অতিরিক্ত ফি আদায়

মতলবে এস এস সি পরীক্ষার্থীদের অতিরিক্ত ফি আদায়

মতলব প্রতিনিধিঃ ২০২০ইং এর এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র ফি শিক্ষা বোর্ড জনপ্রতি২৫০ টাকা হারে নির্ধারণ করে দিলেও এ বিধানের তোয়াক্কা করছেনা চাঁদপুরের
মতলব উত্তর উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কেন্দ্র সচিব স্বীকার করেন যে, এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র ফি ৭০০ টাকা হারে উত্তোলনের বিষয়টি তারা উপজেলা পর্যায়ে অন্য প্রধান
শিক্ষকদের সাথে আলোচনা সাপেক্ষেই ঠিক করেছেন।
উপজেলার এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রের বাগানবাড়ী আইডিয়েল একাডেমি পরীক্ষা কেন্দ্র, নাউরী
আহমাদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র, দশানী- মোহনপুর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র, নিশ্চিন্তপুর উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা
কেন্দ্র ও ফরাজীকান্দি মাদ্রাসা পরীক্ষা কেন্দ্র সচিবের সাথে যোগাযোগ করলে তারা জনপ্রতি ৭০০ টাকা হারে কেন্দ্র ফি উত্তোলন করার কথা অবলিলায় স্বীকার করেন। আর ছেংগারচর সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রও জমিলা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র সচিব ৬০০ টাকা হারে উত্তোলনের কথা স্বীকার করেন। মতলব উত্তর উপজেলায় এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র ৭টি আর সমমানের দাখিল পরীক্ষার কেন্দ্র ১টি এখানে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৪ হাজার ২২৯ জন।

অতিরিক্ত হারে কেন্দ্র ফি’র ব্যাপারে কয়েকজন অভিভাবকের সাথে কথা হলে তারা জানান, স্যাররা বাড়তি
টাকা নিলে আমাদের কি করার আছে বলেন? এ নিয়ে বেশী চাপাচাপি করলেতো স্যারেরা যদি পরীক্ষার্থীর ক্ষতি করে। আমাদের উপজেলায় জেএসসি, এসএসসি, এইচএসসি সব পরীক্ষাতেইতো স্যারেরা অতিরিক্ত হারে কেন্দ্র ফি ও ফরম ফিলাপের ফি’র টাকা নিচ্ছে কই প্রশাসনতো কোন ব্যবস্থা নেয়না। তবে আপনাদের লেখালেখি করেও কোন লাভ হয়না। আর কোন ব্যবস্থা নেয়ার কথাও শুনিনা।
এ উপজেলার বিভিন্ন সময়ের পরীক্ষাতেও অতিরিক্ত হারে কেন্দ্র ফি উত্তোলন করা হলেও কখনো কোন ব্যবস্থা
নেয়া হয়না। প্রতি বছরই পত্রিকায় অতিরিক্ত কেন্দ্র ফি নেয়ার নিউজ আসে কিন্তু প্রশাসন কোন ব্যবস্থায়
নেয়না এমনটাই জানালেন কয়েজন দরিদ্র অভিভাবক।

অতিরিক্ত হারে কেন্দ্র ফি উত্তোলনের ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল কাইয়ূম খানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, লিখিত ও সুনিদিষ্ট অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে । অবশ্য প্রতি বছর জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষার সময়ে এই দপ্তর একই উত্তর দিয়ে আসছেন। কিন্তু কখনোই কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি এমনকি কোন ধরনের খোজখবরটাও নেয়া হয়নি।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এএম জহিরুল হায়াত জানান, বোর্ড নির্ধারিত ফি’র অতিরিক্ত নেয়ার কোনো সুযোগ নেই। অতিরিক্ত হারে ফি নেয়ার কোন অভিযোগ পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com