Home / Breaking News / ঠিক করেননি অর্থমন্ত্রী: সিইসি হুদা

ঠিক করেননি অর্থমন্ত্রী: সিইসি হুদা

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত যেভাবে একাদশ জাতীয় নির্বাচনের সম্ভাব্য তারিখ বলে দিয়েছেন, তা ‘ঠিক হয়নি’ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা।
ভোটের তারিখ নিয়ে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের কোনো ধরনের আলোচনার কথাও অস্বীকার করেছে নির্বাচন আয়োজনের দায়িত্বপ্রাপ্ত এই সাংবিধানিক সংস্থার প্রধান।

বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সিইসি নূরুল হুদা বলেন, “অর্থমন্ত্রী ভুল বলেছেন। আমাদের সাথে এ নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। উনার এ কথা বলা উচিৎ হয়নি।”

সংবিধান অনুযায়ী আগামী ৩০ অক্টোবর থেকে ২৮ জানুয়ারির মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে নূরুল হুদার কমিশনের সামনে। আর কমিশন যে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে ভোটের সম্ভাব্য সময় ধরে প্রস্তুতি নিচ্ছে, সে কথাও বলেছিলেন ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

এ নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করার এখতিয়ার নির্বাচন কমিশনের হলেও সম্ভাব্য একটি তারিখ বুধবার আগেই বলে দিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

সচিবালয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের নব নির্বাচিত কাউন্সিলরদের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি বলেন, “নির্বাচন কমিশনের সাথে কথা বলে জেনেছি তারা প্রস্তাব দিচ্ছে ২৭ ডিসেম্বরের নির্বাচন করার জন্য। ডিসেম্বরের খুব বেশি ডেইট নেই, আজকে শহীদ দিবস বিজয় দিবস অনেক কিছু থাকে।

“আমার মনে হয় দুই তিনটা ডেইট ছাড়া পাওয়া যায় না। ২৭ তারা করেছে, ২৭ এ নির্বাচন হওয়ার চান্স খুব বেশি। এখনো নির্বাচন কমিশন শিডিউল ঘোষণা করেনি, ঘোষণা করলে সুনির্দিষ্ট দিন পাওয়া যাবে।”

বৃহস্পতিবার ফেমবোসা সম্মেলন শেষে ঢাকার একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে এসে ভোটের তারিখ এবং মন্ত্রীর মন্তব্য নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েন সিইসি নূরুল হুদা।

উত্তরে তিনি বলেন, “উনি (অর্থমন্ত্রী) তারিখ ঠিক করে দিয়েছেন, এটা উনার ভুল হয়েছে। উচিৎ হয়নি… ঠিক করেননি।”

বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী, তফসিল ঘোষণা হয়ে গেলে নির্বাচন পরিচালনা ও প্রশাসনের বেশ কিছু ক্ষমতা চলে যাবে নির্বাচন কমিশনের হাতে। সরকার কেবল রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় দৈনন্দিন কাজগুলোই করবে।

নির্দলীয় সরকারের অধীনে ভোটের দাবিতে দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করা বিএনপি এবারও ওই দাবিতে অনড়। সেই সঙ্গে এবার দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিও যোগ করে নিয়েছেন তারা।

স্থানীয় সরকারের গত কয়েকটি নির্বাচনে ক্ষমতাসীনদের ‘ব্যাপক অনিয়মের’ অভিযোগ জানিয়ে আসা বিএনপি নেতারা নূরুল হুদার কমিশনকে সরকারের ‘তল্পিবাহক’ আখ্যায়িত করে পদত্যাগের দাবিও জানিয়ে আসছেন।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com