Home / Breaking News / থানার ভেতর’ শিশুকে নির্যাতন, যুবক আটক

থানার ভেতর’ শিশুকে নির্যাতন, যুবক আটক

চুরির অভিযোগ তুলে কক্সবাজারের ‘চকরিয়া থানার ভেতর’ এক শিশুকে নির্যাতনের অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।
শনিবার দুপুরে চকরিয়ার এ কে এম রিদুয়ানুল করিম নামের এক ব্যক্তির ফেইসবুক আইডিতে ভিডিও চিত্রটি পোস্ট করার পরপরই তা ছড়িয়ে পড়ে।

তবে চকরিয়া থানা পুলিশ ঘটনাটি থানার ভেতর ঘটেনি বলে দাবি করছে।

চকরিয়া থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এ ঘটনায় শনিবার দেলোয়ার হোসেন নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। দেলোয়ার চকরিয়া উপজেলার কাকরা ইউনিয়নের পূর্ব কাকরা পাহাড়তলী এলাকার ইউছুপ আলীর ছেলে।

পেশায় তিনি একজন অটোরিক্সা চালক এবং মাঝেমধ্যে চকরিয়া থানার কর্তব্যরত পুলিশদের নিয়ে ভাড়ায় গাড়ি চালান বলে জানান ওসি।

ওসি বখতিয়ার বলেন, “ঘটনাটি দুই মাস আগে ঘটেছিল। দেলোয়ার হোসেন প্রায় সময় চকরিয়া থানার কর্তব্যরত পুলিশদের নিয়ে ভাড়ায় গাড়ি চালান। থানা এলাকার বাইরে রাখা তার অটোরিকশা থেকে গাড়ির যন্ত্রাংশ চুরির অভিযোগ এনে শিশুটিকে সে মারধর করেছিল।”

দুই মাস আগে সংঘটিত এ ঘটনার ভিডিও চিত্রটি কে বা কারা তখন মোবাইল ফোনে ধারণ করেছিল। শনিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে এ ঘটনার ভিডিও চিত্রটি ছড়িয়ে দিয়েছে বলে তিনি জানান।

ঘটনাটি থানার ভবনের অভ্যন্তরে ঘটেনি বলে দাবি করে চকরিয়া থানার ওসি বখতিয়ার।

আটক দেলোয়ারকে জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে বখতিয়ার বলেন, “ঘটনার দিন চুরির অভিযোগে শিশুটিকে মারধর করার পর করুণা হলে শিশুটিকে দেলোয়ার হোটেলে নিয়ে খাবার খাওয়ায়। পরে শিশুটিকে কক্সবাজারমুখী বাসে তুলে দিয়েছে।”

কিন্তু শিশুটির নাম ও পরিচয় জানাতে পারেননি ওসি।

আটক ব্যক্তিকে জিজ্ঞসাবাদ চলছে। ঘটনার ব্যাপারে বিস্তারিত খোঁজ-খবর নেওয়ার পর জড়িত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে ওসি জানান।

ভিডিও চিত্রটিতে দেখা গেছে, সাদা শার্ট ও নীল রঙের জিন্স প্যান্ট পরিহিত আনুমানিক ৩০/৩৫ বছর বয়সী এক যুবক ১০/১১ বছর এক শিশুকে কিছু একটা দিয়ে মারধর করছে। শিশুটি কান্না করতে করতে অস্বীকার করলেও তার মারধর থেমে থাকেনি।

ঘটনাটি কখন ঘটেছে তা ফেসইবুকে করা পোস্টে উল্লেখ করেননি রিদুয়ানুল করিম।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com