Breaking News
Home / Breaking News / মেলান্দহের তরুণ প্রজন্ম বদরুদ্দোজা পি এফকে চেয়ারম্যান হিসেবে পাশে চাই।

মেলান্দহের তরুণ প্রজন্ম বদরুদ্দোজা পি এফকে চেয়ারম্যান হিসেবে পাশে চাই।

নিপুন জাকারিয়া, জামালপুর প্রতিনিধি:–

জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন জমে উঠেছে। চা- আড্ডা থেকে শুরু করে পাড়া- মহল্লা সবখানে একি গুঞ্জন তুঙ্গে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মিদের মাঝে, এরই মধ্যে, নির্বাচনের হাওয়া বইতে শুরু করেছে। চেয়ারম্যান /ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে, একাদিক প্রার্থী নিজেদের ব্যাক্তিগত ইমেজ তুলে ধরে, ব্যস্থ সময় পার করছেন।

উপজেলায় আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে দু-সময়ের কান্ডারী ও একনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে পরিচিত, জেলা তাঁতী লীগের আহবায়ক, বদরুদ্দোজা পি এফ, চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে, তৃনমূল ব্যাপক সারা জাগিয়েছে। এরই মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে নব-নিবার্চিত সাংসদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে, অনুষ্ঠানিক ভাবে প্রার্থীতা ঘোষনা করেন তিনি। তিনি তার বক্তব্য বলেন, এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে, ত্যাগী কর্মী হিসেবে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন চান তিনি। সকল সাংসদের ভালবাসা নিয়ে, তিনি মনোনয়ন পাবার ১০০ ভাগ প্রত্যাশা করেন।

জানা গেছে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন- ২০১৯ আগামী মার্চ মাস থেকে অনুষ্ঠিত ভাবে শুরু হওয়ার কথা প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন দলীয় প্রতিকে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা শুনা যাচ্ছে।

উপজেলার তরুণ প্রজন্মদের প্রত্যাশা, -সারা বাংলায় যুবকন্ঠ হিসেবে পরিচিতি, সাবেক বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী, ৬ বারের নির্বাচিত সাংসদ মির্জা আজমের ভাতিজা বদরুদ্দোজা পি এফ। তার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহাঙ্গীর আলম। বদরুদ্দোজা বর্তমানে জামালপুর জেলা তাঁতী লীগের আহবায়ক। আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান উপজেলা কমিটির সিনিয়র যুগ্ন-আহবায়ক তিনি। সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও গনজাগরণ মঞ্চের উপজেলা কমিটির যুগ্ন আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন নিষ্ঠার সাথে। তিনি বিগত সময়ে দরিদ্র আর নিপিড়িত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে, উপজেলা বাসীর আস্তা অর্জন করেছেন। তাই বদরুদ্দোজার আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়ে উপজেলা বাসীর সেবা করবে, এমনি প্রত্যাশা তরুণ প্রজন্মের।

জানা যায়-মেলান্দহ ও হাজরাবাড়ী দুটি পৌরসভাসহ ৯টি ইউনিয়ন নিয়ে বিশাল আকারে গঠিত মেলান্দহ উপজেলা পরিষদ । ২০১৯ সালের পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হিসেবে, ইতিমধ্যেই বেশ কয়েক জনের নাম শুনা গেলেও, তৃনমূলে বদরুদ্দোজার নাম সুপষ্ট হয়ে উঠেছে। মেলান্দহ আওয়ামী লীগ পরিবারের হাই কমান্ড থেকে শুরু করে, আওয়ামী লীগের অঙ্গ সহযোগী সংগঠন এবং তৃনমূল ভোটাররা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বদরুদ্দোজাকে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চাচ্ছেন ।

বদরুদ্দোজা পি এফ জানান- জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারন করে ও বঙ্গকন্যা আওয়ামী লীগের অভিবাবক, প্রধানমন্ত্রী, শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করে যাচ্ছি। এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ বিগত যেকোন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রতিক নৌকাকে বিজয়ের লক্ষ্যে নিষ্ঠার সাথে কাজ করেছি। দীর্ঘ্য রাজনৈতিক জীবনের সব সময় আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করে, আওয়ামীকে সংঘবন্ধ করেছি।
সাবেক বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজমের সাথে রক্তের সম্পর্ক থাকায়, জনমানুষ সাথে ছিল গভীর সম্পর্ক । তাই জামালপুরের উন্নয়নের সপ্নশ্রষ্ঠা সাংসদ মির্জা আজমের ভালোবাসা নিয়ে মেলান্দহ উপজেলা বাসীর সেবা করে যেতে চান জীবনের শেষ মূহুত্ত পর্যন্ত। নির্বাচন সামনে রেখে বদরুদ্দোজা উপজেলার তৃনমূল ভোটারদের ধারে ধারে গিয়ে দোয়াঁ নিচ্ছেন। এবং তাদের সমর্থন অর্জন করে, সর্বত্র উপজেলা জুড়ে, আলোচনার শিষ্যে অবস্থান করছেন।

তিনি আরো জানান- হাজরা বাড়ী, পিতার জম্ম স্থান ও দুরমুট মিয়া বাড়ী, মাতার জম্ম স্থান হওয়ায়, উপজেলার মানুষের সাথে তার রয়েছে নিবির সম্পর্ক। বর্তমানে তিনি মেলান্দহ রেলওয়ে স্টেশনের জালালপুর গ্রামে বসবাস করেছেন। এর ফলে উপজেলার সবগুলি ইউনিয়নেও রয়েছে তার ব্যাপক পরিচিতি। তিনি বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ এবং বিভিন্ন ক্রীড়া সংগঠনসহ সামাজিক ও উন্নয়নমূলক কাজের সাথে জড়িত রয়েছেন।

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তৃনমূল নেতৃবন্দরা প্রতিবেদক কে জানান- উপজেলাকে প্রধানমন্ত্রী এশতেহার অনুযায়ী গ্রামকে শহর করনে একটি ডিজিটাল উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে ত্যাগী নেতা বদরুদ্দোজা পিএফের বিকল্প নেই।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com