Breaking News
Home / Breaking News / কবি মুহাম্মদ আমির হোসেন এর কবিতা ” বিংশের বীর সিংহ আমি”

কবি মুহাম্মদ আমির হোসেন এর কবিতা ” বিংশের বীর সিংহ আমি”

বিংশের বীর সিংহ আমি

আমি মানবতার পক্ষে কি বলিবো
জাতীয়তাবাদ যেথায় কট্টর
আমি তারই ছোঁয়ায় আত্মা প্রত্যয়ী
দেখনি আমার বীর সমর
আমি বিএল কলেজে ছাত্রের গলায় চালিয়েছি শাণিত চাপাতি
আমি শিক্ষার মুখে কলঙ্ক লেপেছি করেছি অনেক ডাকাতি
তারপরও আমি ক্ষান্ত হইনি
আমি চাই শুধু রক্ত
আমার গাড়ীতে ফ্লাগ উড়ছে
যত অবুঝের দল আমার ভক্ত
দেখেছো আমায় দয়ালু হতে নির্বাচনের আগে
তাই রাখিনি আমি বিদ্রোহী যদি বিদ্রোহ জাগে
আমি প্রিয়ার কাছে আতঙ্ক নই
সংস্কার তার আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি রাজনীতির ভয়ালতা নই
আমি বিবসা্ মায়ের সন্তান
আমি হাইজ্যাক আর রাহাজানি করি
আমি কন্দর্পকূপে এইডস জীবাণুর কলতান
আমি সহিংসতার পিপাসী
আমি সভ্যতাকে করি গ্রাস
আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে সন্তান পাঠানো
বিধবা মায়ের হাহুতাশ
আমি মসজিদ মন্দির গীর্জায় যাই
আমি স্বাধীনতায় করি রাজাকারী
আমি মুক্তিযোদ্ধারও কলঙ্ক হয়েছি
এখনো অনেক বিবস্ত্র,পঙ্গু দেয় আহাজারি
আমি সবার কাছে আতঙ্ক নই
যাহাদের তৈরী ফসল আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি কোলকির ধোঁয়ায় ঘোলাটে করেছি
ঘোলাটে করেছি পরিবেশ জীবন প্রবাহ
আমি বিরূপ পরিবেশে চরশ হেরোইন নিয়েছি
আমি অযুতবার নিজেকে করেছি দাহ
আমি মদের তালে মাতাল হয়েছি
আমি সৃজনতাকে করিনি ঘৃণা
অন্ধকার গলিতে তৈরী হোক অস্ত্র
শুধু দেখি আমার জন্যে কী না?
আমি প্রতি পদক্ষেপে নির্মমভাবে নির্ভয়ে করে চলেছি যত পাপ
আমি তাই মৃত্যুর নীলে সাজিয়েছি সতত যুবককে,
চিরমুক্তি দিয়ে করেছি সাফ
আমি সব সমাজের আতঙ্ক নই
উপরতলার প্রিয়জন আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি উপরি নেই যত অপসংস্কৃতির
আমি পাশ্চাত্যের ভঙ্গিতে ছন্দহারা
আমি মলে যাই যত চেতনার বাঁধা
আমি অসভ্য জগতেও নই স্বজনহারা
আমি কোমল হাতের পরশ পেয়েছি
সভ্য সমাজে কতবার কত পতিতার
আমি নির্বিঘ্নে বাল্যশিক্ষা ছুঁড়ে ফেলেছি
ট্রিগার চেপে বারুদের গন্ধে সততার
আমি আপনার লয়ে মুক্তি চেয়েছি
কতবার কতক্ষনে
আমি পাইনিকো ছাড় হতে শৃংখল
জীবন নাশের ভয়ে
আমি মায়ের কাছেও আদরের নই
অবাধ্য তার আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি প্রিয়ার হাতের কঙ্কন হতে
আমি জ্যোস্না আপ্লুত জোনাকি ঘেরা রাতে
আমি চেয়েছি তার সান্নিধ্য অনুক্ষন
আমি অমর হতে চেয়েছি ফুল হয়ে প্রভাতে
আমাকে ধিক্কার দিয়ে ভেঙে দিলে সব বন্ধন
আমি চেয়েছি তোমায় পূজো দিতে
আমার প্রীতির অর্ঘ্যে
তুমি ডাস্টবিনে ফেলে দিলে বাসি ফুল ভেবে
উঠলে ভীষন গর্জে
আমার আকাশে নেই শুকতারা
আমি এখন শুধু নীল
আমি হিংস্র, দুর্জয়, দুর্দম
সমাজপতিদের কর্মে পাবে আমার মিল
আমি মানবতার আপনজন নই
ধিক্কৃত তার আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি ড্রামের তালে হই আত্মাহারা
আমি বাউলের মতো নই সুর সন্ন্যাসী
আমি সুন্দরের মাঝে ককটেল ফেলে করি ধ্বংস
আমি হায়েনার চেয়েও নির্মম,আমি সন্ত্রাসী
আমি আপনার সুরতে বার্নিশ করি
আমি রক্তের উপর দিয়ে চলি আলতো পায়ে
আমি ইতিহাসেও বীজ রোপণ করেছি আমার
তাই ইতিহাসও চলে আমার সায়ে
আমি শত লাশের উপর তুড়ি বাজিয়েছি
আমি আমির আমি সৈনিক
আমি মানব চৈতন্যে জ্বালিয়েছি আগুন
আমার প্রশংসায় স্ব উজ্জল কিছু দৈনিক
আমি কিয়ামতেও আতঙ্ক নই
সেই মিছিলেও থাকবো আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি মনুষ্যত্ব উগারি বক্ষ হতে
ছিনিয়ে আনি হৃদয়ের কথামালা
আমি স্বাধীনতায় হানি চরম আঘাত
আমি বিবেকের বুকে কম্পন বিষ জ্বালা,
আমি স্বাধীকার খুনে রঙিন জামার আস্তিন
আমি গনতন্ত্রের হন্তারক একত্ববাদী জমিন,
আমি শিক্ষার শোভন কণিকায়
আদিম গুহার আঁধার
আমি তিলে তিলে করি নিঃশেষ
আমি রাক্ষুসে চামার
আমি কোন ভয়ে ভয়ার্ত নই
সকলই সৃজন করেছি আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমিই একক সত্তা ,বাকিরা দালাল সব
দিকে দিকে শুনি জয়োধ্বনি তোষামোদ কলরব,
আমি একাই ধারণ করি
টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া
আমিই মহা দানব গোটা বাংলা
এক লুকমায় নিবো গ্রাসীয়া,
আমি বিশ্বজিতের রক্তের স্রোতে
ভাসাই তরী উল্লাস
আমি বিচারিক মহলে করি ত্রাসন
আমি সর্বহারার হাহুতাশ,
আমি প্রধান বিচারপতির আতঙ্কিত দেশত্যাগ
আমি মতলবি আন্দোলন স্লোগানের গতিবেগ
আমিই একক ও একত্ববাদ
সকলের কাছে পূজিত আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি একুশে আগস্টের গ্রেনেড হামলা
স্প্রিন্টারে ক্ষত বিক্ষত বীভৎসতা
যুগের অবসানেও বয়ে বেড়াই
কলুষিত যন্ত্রণার অবসাদ নৃশংসতা,
আমি পাঁচই মে’র সাউন্ড গ্রেনেড
লাশের বুকে করি নৃত্য
আমি সার্টিফিকেটের মওকা ঝুলিয়ে
মিস্টি তেঁতুলকে করি ভৃত্য
আমি মহা উল্লাসে গ্রেনেড ছুঁড়ে
সকলকেই ছিন্ন ভিন্ন করি আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি পঁচানব্বইয়ের চৌঠা ডিসেম্বর গ্রীনস্টার
আমি আগুন সন্ত্রাসের গোড়াপত্তন
আমি দুই হাজার চৌদ্দতে পেট্রোল বোমা
আমি আগুন সন্ত্রাসের পুনর্জাগরণ,
আমি জ্বলসানো বারবিকিউ আমি যম অগ্নি
আমি চিতার তরঙ্গে করি খেলা
শ্মশানের প্রেতাত্মা আমার ভগিনী,
আমি পঁচিশে ফেব্রুয়ারীর কূটকৌশল
আমি দেশপ্রেমের করেছি সৎকার
আমি দেশপ্রেমে দেউলিয়া হয়ে
পুরো বাহিনীরে করেছি বদকার,
আমি শুনেছি সেদিন কন্যা জায়া জননীর
বুকফাটা আর্ত চিৎকার
আমি করে চলেছি লম্ফ জম্ফ আহা
মায়ার বাঁধন ছিঁড়ে দিয়েছি ফুৎকার
আমি আগুনের লেলিহান শিখা
সকলকে আগুনে পোড়াই আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি শ্রাদ্ধে বেদনায় নৃত্য করি
আমি প্রেমের কবি জীবনানন্দ
আমি প্রেমিকা হীন বাঁচিতে চাই না
আমি বদরুলের চাপাতির ছন্দ,
আমি কোটায় হাতুড়ি হেনে মেরুদণ্ড যাই ভাঙ্গিয়া
আমি শাসকের আসনে বসে নির্বিঘ্নে যাই হাসিয়া,
আমি শহীদ মিনারের পবিত্র পাদদেশে
কুকুরের চেয়েও হীন
অধিকারের বানী নিভৃতে কাঁদে
আমি মানবতার চোখে ঠেকাই সঙ্গীন,
আমি অন্ধকারের ভয়ংকর বাঘ চিতা
প্রজন্মের সংস্কারক আমি নিষ্ঠুরতার মিতা,
আমি লেবাসধারীর গুম খুনে দেই নিঝ্ঝুম
আমি অচেনা অজানায় দেহ তরীর চির ঘুম,
আমি বুড়িগঙ্গায় ভেসে উঠি হয়ে লাশ
আমি তরুণ খুনের বরুণ মেখে দাঁড়াই সর্বনাশ
আমি মৃত্যুর অতল তরী
সকলের কাছেই বিভীষিকা আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি সড়কের মৃত্যুর রোলে
বেজন্মার নির্লজ্জতায় হাসি
আমি কিশোর কিশোরীর নির্ভীক আন্দোলনে
হেলমেট বাহিনীর কলঙ্কে ভাসি,
আমি কখনো লুঙ্গি বাহিনীর অস্ত্রধারী
আমি কখনো ইয়া বাবার মহা কান্ডারী,
আমি কখনো বদি’কে বৌদি’র কোলে চড়াই
আমি বিদিশার বুকের নেশা চড়াই উৎরাই
আমি হাসি যেন হাসির অনন্ত ফোয়ারা
সকলেরই প্রিয়তম আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

আমি পালিয়ে যাবার ভয়ে আছি
আমি সময়কে নিয়েছি গহীন আঁধারে
আমি নিজের ভাবনায় দেখি অপঘাতে মরন
আমি বিমূর্ত স্বপ্নে ছিনিমিনি খেলি হৃদ মাজারে,
আমার স্নায়ুতে আঁচড় কাটেনা কোন কিছুই
আমি শ্মশানের পোড়া গন্ধে দেই মন প্রাণ
আমি গোরস্হানের দারোয়ান
আমি প্রত্যেহ মৃত্যুর মিছিল দেখি
সকলের মৃত্যুতে কাঁদি না আমি
নব-দিগন্ত সালাম ঠুকে তাই
বিংশের বীর সিংহ আমি।

——মুহাম্মদ আমির হোসেন
২৪/১১/১৮ ঢাকা

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com