Breaking News
Home / Breaking News / কবি অভিজিৎ দাস’র কবিতা ” মৃত্যুদন্ড”

কবি অভিজিৎ দাস’র কবিতা ” মৃত্যুদন্ড”

|| মৃত্যুদন্ড ||
|| অভিজিৎ দাস ||
২৬/০৮/২১
——————————
এক বৃষ্টির দিন
তার ভিজে শাড়ি, ভিজে ঠোঁট, ভিজে কথাদের সাথে
বৃষ্টি বুকে
সৃষ্টি সুখে
কিছুক্ষন তার সাথে নিরালায় নির্জনে
ভীষণ সুখী এ বুকে মুহুর্ত লিখে যাই।

তারপর…..

মেঘ কেটে গেলো, অতীত হলো পড়ন্ত বিকেল
দিগন্ত ছুঁয়ে উঠে এলো চাঁদ।

সে চলে যাওয়ার আগে তার হৃদয়ে
আমাকে বেঁচে থাকার শর্ত দিযে গেলো…
মৃত্যুদণ্ড, যে কোনো উপায়।

আমি ভাবছি, ভেবেই চলেছি
স্তব্ধ রাত্রির মধ্য-আকাশে আগুন লাগা চাঁদ,
এগিয়ে যাচ্ছে ঘন্টা, মিনিট, সেকেন্ড, রাত গভীর হলো
সামনে নদীর চড়ে কয়েকটা শেয়াল সন্তর্পণে ঘুরছে।
নদীতে ঝাঁপ দিলাম..
নুড়ি পাথর আমাকে চুম্বন করে চলে যাচ্ছে,
এক জলপরী এসে আমাকে পাড়ে তুলে দিলো।
জ্ঞান ফিরতেই কানে এলো, সে বলছে
মৃত্যুতেই সব শেষ না, এর পরেও জীবন থাকে
যাও, নদীতে স্নান করে অশ্রু বিসর্জন দাও।

আমার মৃত্যু হলো না।

সকাল হলো
ব্যস্ত হলো পথ, জেগে উঠেছে জনজীবন
আমি তুলে নিলাম হেমলক
বললাম, দাগ করে দাও ঠোঁটে,
আরো আরো চুম্বন করো
এই সে মৃত্যু যা জন্মের চেয়েও বড়।
আমার শরীর বিদীর্ণ করে বেরিয়ে এলো এক ঝাঁক পাখি,
উড়ে যাওয়ার সময় একটা পাখি বলে গেলো
এইভাবে মৃত্যু হয় না,
ভালোবাসায় বিষও অমৃত হয়ে যায়।

আমার মৃত্যু হলো না।

অতঃপর আলোকবর্তিকার রূপে এক ভবিষৎদ্রষ্টা
এসে উপস্থিত হলেন আমার সামনে
বললেন: “তুমি মৃত্যু চাও?”
নিঃশর্ত ভালোবাসো তাকে,
তার অবহেলায় তোমার মৃত্যু ঘটবে।

দুপুর ফুরিয়ে সন্ধ্যে, সন্ধ্যে গড়িয়ে রাত এলো
কি আছে ভয়ের? পরদিন থেকে তোমাকে,
তোমাকে ছোঁব না আর!
রাত গভীর, ভোরের আগেই, আবারও একবার
আমি চোখ বন্ধ করে লাফিয়ে পড়লাম ছুটন্ত ট্রেনের সামনে….
============৩০১২২০============

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com