Home / Breaking News / সরকারি বিধি নির্দেশ অমান্য করে চাঁদপুর বাংলাবাজারে জমজমাট গরুর হাট

সরকারি বিধি নির্দেশ অমান্য করে চাঁদপুর বাংলাবাজারে জমজমাট গরুর হাট

ষ্টাফ রির্পোটারঃ
করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকার দেশব্যাপী ৭ দিনে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে জনসমাগম রোধে সকল দোকানপাট সহ গরুর হাট বন্ধ ঘোষণা করেন।
কিন্তু সরকারি বিধি নির্দেশ অমান্য করে চাঁদপুর সদর উপজেলার ১২ নং চান্দ্রা ইউনিয়ন ও হাইমচর উপজেলার ২ নং দক্ষিণ আলগী ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী এলাকার বাংলাবাজারে জমজমাট গরুর হাট বসেছে। স্বাস্থ্য বিধি ও সামাজিক গুরুত্ব না মেনে গরুর হাটের ইজারাদার সুলতান মাঝি ও আলী আহমেদ কবিরাজ সহ ব্যাবসায়ীরা গরু হাটে গরু কেনাবেচা করছে।
সপ্তাহের শনিবার জুড়ে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বাংলাবাজারে জমজমাট গরু হাট বসেছে। এই গরুর হাটের চরমভাবে করণা সংক্রমণ বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। গরুর হাটে ক্রেতা বিক্রেতাদের অনেকের মুখেই ছিলনা মাক্স সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে তারা গরু ক্রয় বিক্রয় করতে দেখা যায়। চর অঞ্চল থেকে ব্যাপারীরা শত শত গরু নিয়ে বাংলা বাজার গরুর হাটে এসে গরু বিক্রি করেছে।
সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গরুর হাট বসার খবর পেয়ে সেনাবাহিনী শনিবার দুপুরে বাংলাবাজার গিয়ে তাদেরকে ধাওয়া করে। এসময় গরু রেখে ক্রেতা বিক্রেতারা দিক বেদিক ছোটাছুটি করতে দেখা যায়।
গরুর হাটের ইজারাদার সুলতান মাঝি স্থানীয় একদল যুবকদের পাহারায় রেখে গরুর হাট বসিয়েছেন। এতে করে করোনা সংক্রমণ চরম হারে বৃদ্ধি পেয়েছে বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী।
এই বিষয়ে ইজারাদার সুলতান মাঝি জানান, ডিসি অফিসে ৫০ হাজার টাকা ঘুষ দিয়ে ১০ লাখ টাকায় গরুর হাটের ইজারা নিয়েছি। সরকারের বিধি নির্দেশ মানার সুযোগ নেই। গরুর হাট থেকে ইজারার সেই টাকা উঠাতে হবে। অযথা আমাদের সমস্যায় ফেলবেন না এলাকায় আমাদের কথায় সব হয়।

এদিকে সরকার ঘোষিত সাত দিনের লকডাউন বাস্তবায়নে চাঁদপুর জেলার সকল গরুর হাট আপাতত বন্ধ থাকা সত্ত্বেও শুধুমাত্র বাংলাবাজারে আইন অমান্য করে গরুর হাট বসিয়ে করণা সংক্রমণ বাড়াচ্ছে। তাই অতি দ্রুত সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেন সচেতন মহল।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com