Home / Breaking News / খান বংশের সন্ত্রাসীরা বেপরোয়া

খান বংশের সন্ত্রাসীরা বেপরোয়া

ষ্টাফ রির্পোটারঃ
চাঁদপুর সদর উপজেলার ২ নং আশিকাটি ইউনিয়নের মসজিদের ভিতরে খান বংশের সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে দশজনকে রক্তাক্ত জখম করেছে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে আসর নামাজের শেষে ফ্যান চালানোকে কেন্দ্র করে আশিকাটি ৬নং ওয়ার্ডের লালদিয়া গ্রামে আদর্শ মুসলিম জামে মসজিদের ভিতরে এই হামলার ঘটনা ঘটে।
পবিত্র মাহে রমজানের এই মসজিদের ভিতরে দুই দফা হামলার ঘটনায় এলাকায় আবার রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।
আহতরা জানান, আদর্শ মুসলিম জামে মসজিদে একটি ফ্যান বিকট শব্দ হাওয়ায় সেটি বন্ধ করার কথা বললে আলী খানের ছেলে শাহ আলম, সুমন উত্তেজিত হয় সুলতান কাজীর সাথে মসজিদের মধ্যে ঝগড়া করে। দুই পক্ষের তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে মজিদের মধ্যেই হামলা চালায় ও আসা যাওয়ার পথে বেড়া দিয়ে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় স্থানীয় ভাবে সমাধানের চেষ্টা করলেও পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার আসর নামাজের শেষে সন্ত্রাসী বিল্লাল খান দলবল নিয়ে মসজিদের মধ্যে হামলা চালিয়ে ১০ জনকে আহত করে।
তাতেও তারা ক্ষান্ত না হয়ে বাবুরহাটের মাল বাড়ির ভাড়াটে সন্ত্রাসী কাউসার মালকে এনে কাজি বাড়িতে ঢুকে হামলা চালায়। এ সময় কাজি বাড়ির দুজন গৃহবধূকে শারীরিক নির্যাতন চালিয়ে জামা কাপড় ছিড়ে ফেলে।
তাদের হামলায় আহত নুজরুল, সুলতান কাজী, এমরান হোসেন কাজী ও মোহাম্মদ আলী কাজীকে হাসপাতালে যেতে বাধা দেয়। পরে পুলিশ আসার খবর শুনে সন্ত্রাসীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করলে অবশেষে আহতদের হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়।
আহত শফিক কাজী জানান, মসজিদের ফ্যান চালানোকে কেন্দ্র করে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে তবে পরবর্তীতে বিল্লাল খান পেশী শক্তির ব্যবহার করে সন্ত্রাসীদের এনে অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে আহত করেছে। এছাড়া মাল বাড়ির কাউসার মাল এসে বাড়ির ভিতরে ঢুকে মহিলাদের শারীরিক নির্যাতন চালিয়েছে ও তাদেরকে তুলে নেওয়ার হুমকি দেয়। আমরা এই সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানাই।
এদিকে মসজিদের মধ্যে হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঁদপুর মডেল থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com