Breaking News

মো কামরুল হোসেন সুমন,ভোলা প্রতিনিধিঃ
ভোলার চরফ্যাশনের নারী মুক্তিযোদ্ধা ফরিদা বেগমের জমি থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে দখল মুক্ত করেছেন উপজেলা প্রশাসন। শনিবার সকালে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আবু আব্দুল্লাহ এ দখল মুক্ত করেন।
নারী মুক্তিযোদ্ধা ফরিদা বেগম বলেন, উপজেলার জিন্নাগড় ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডে উত্তর চর মাদ্রাজ মৌজায়, জেএল নং-২৮, বিএস খতিয়ান নং-১৫৭৬, বিএস দাগ নং-১৫৭৬, বিএস দাগ নং-৪৭২৩ দাগে ৬ একর জমি দীর্ঘ ৬০ বছর ধরে ভোগ দখলে আছি। সম্প্রতি জিন্নাগড় ইউপি মেম্বার সফিজল হক, স্থানীয় জাহাঙ্গীর কাজী ও মো. বেলাল ভিন্ন দাগে জমি ক্রয় করে জোরপূর্বক আমার ভোগদখলীয় জমি দখলের চেষ্টা করে যাচ্ছেন। তারা ওই জমি দখলে নিতে কিছু স্থাপনা নির্মাণ করে। মাটি কেটে প্রায় ৫ লাখ টাকার ক্ষতি সাধন করে।
তাদের অত্যাচারের বিরুদ্ধে চরফ্যাশন থানায় অভিযোগ করলে থানা পুলিশ গিয়ে তাদের বাঁধা দেয় এবং দুই পক্ষের কাগজপত্র নিয়ে থানায় আসতে বলেন। কিন্তু তারা থানা পুলিশের নিষেধ অমান্য করে। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বরাবর লিখিত অভিযোগ দেওয়া হলে। এই জমির উপরে স্থিতিতাবস্থায় রাখার আদেশ দিয়েছে। ওই আদেশ অমান্য করে ওই জমিতে স্থাপনা নির্মাণ করলে শনিবার উপজেলার সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওই স্থাপনা ভেঙে দিয়ে জমি দখল মুক্ত করেছেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ইউপি মেম্বারসফিজল হক ও জাহাঙ্গীর কাজির সাথে যোগাযোগ করলে তারা বিষয়টি এড়িয়ে যান।
সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আবু আব্দুল্লাহ বলেন, মুক্তিযোদ্ধা ফরিদা বেগমের অভিযোগের ভিত্তিতে ওই জমিতে আদালত নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন। ওই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ওই জমিতে স্থাপনা নির্মাণ করায় তা উচ্ছেদ করা হয়েছে।
ভোলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সুজিত হাওলাদার জানান, মুক্তিযোদ্ধারা জাতির বীর সন্তান। তাদেরকে কেউ নিপীরণ করার কোন সুযোগনেই। মুক্তিযোদ্ধার পরিবারকে অহেতুক হয়রানীর বিরুদ্ধ ব্যবস্থা নিবেন বলে আশ্বাস দেন।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com