Home / Uncategorized / বিদেশে নেওয়ার কথা বলে টাকা আত্মসাৎ বাঘাদীতে প্রতারক কাউছারের খপ্পরে পড়ে নিঃশ্ব সিএনজি চালক

বিদেশে নেওয়ার কথা বলে টাকা আত্মসাৎ বাঘাদীতে প্রতারক কাউছারের খপ্পরে পড়ে নিঃশ্ব সিএনজি চালক

চাঁদপুর প্রতিনিধিঃ

চাঁদপুর সদর উপজেলার ৮ নং বাগাদী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ঘাষিপুর গ্রামের প্রতারক কাউছার পাটওয়ারী নামে এক মানবপাচারকারীর বিরুদ্ধে বিদেশে লোক পাঠানোর নাম করে ও ভিসা প্রসেসিং, নানা কাজ করিয়ে দেওয়ার প্রতারণা করে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
সদর উপজেলার বাগাদি ইউনিয়নের অসহায় সিএনজি চালক বসিরকে ভিসা প্রসেসিং করে দেওয়ার কথা বলে আড়াই লক্ষ টাকা নিয়ে উধাও হয়েছে প্রতারক কাউছার পাটোয়ারী।
ভুক্তভোগীরা তাকে হন্য হয়ে খুঁজে না পেয়ে তার বাড়িতে গেলে তার স্ত্রী এমপি মন্ত্রীদের নাম ভাঙ্গিয়ে হুংকার দিয়ে মিথ্যা মামলায় ভুক্তভোগীদের জড়িয়ে সায়েস্তা করার হুমকি দেয়। এছাড়া ওই মানবপাচারকারীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন মানুষের পাসপোর্ট আটকে রেছে টাকা আদায় করার অভিযোগ উঠেছে। প্রতারক কাওছার পাটওয়ারী বাগাদী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ঘাষিপুর গ্রামের সুলতান পাটওয়ারীর ছেলে।

চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়েনের বাগাদী গ্রামের ৮নং ওয়ার্ডের সি এন জি চালক মো. বশির প্রতারণার শিকার হন। সুখের আসায় তিনি বিদেশে পাড়ি দেওয়ার স্বপ্ন দেখেন।
ভুক্তভোগী মো. বশির জানান, কাউছার পাটওয়ারী সৌদি জাওয়ার জন্য ভিসা প্রসেসিং করার জন্য আমার কাছ থেকে পাসপোর্ট, ভিসার কপি ও ড্রাইভিং লাইসেন্স নেয়। বিভিন্ন কাজের কথা বলে আমার কাছ থেকে ২ লাখ ৫৬ হাজার টাকা নেয়। কিন্তু আজ প্রায় ৮ মাস হয়ে গেল সে আমার কোন কাজ করে নাই। আমার পাসপোর্ট, ভিসা ও ড্রাইভিং লাইসেন্স তার নিকট জমা রাখে। তাকে ফোন দিলে রিসিভ করে না। আমি তার বাড়িসহ বিভিন্ন জায়গায় তাকে খুঁজে বেড়াচ্ছি। তার খোজে বাড়ি গেলে সে আমাকে ডাকাতির মামলা দিবে বলে হুমকি দেয় এবং তার স্ত্রী খুর্শিদা আমাকে নারী নির্যাতন মামলার ভয় দেখায়। আত্মীয়স্বজনের কাছে বিচার প্রার্থী হয়েও কোনো পথ খুঁজে পাচ্ছি না। ৮ মাস হয়ে গেল আমার টাকাও নেই ভিসা, পাসপোর্ট কোনটাি পাইনি। তার কোনো খোঁজখবর আমি পাচ্ছি না। আমি একজন সিএনজি ড্রাইভার। দুই মেয়ে ও এক ছেলে নিয়ে সরকারি জায়গায় দিনাতিপাত করে বসবাস করি। কিস্তি তুলে এবং ধার দেনা করে আমি কাউসার পাটওয়ারী কে ২ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা দেই।
স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন কাউসার পাটওয়ারী একজন ঠকবাজ সে বিভিন্ন লোকজনের সাথে দীর্ঘদিন প্রতারনা করে আসছে। লোকজন এলাকায় তার খোজে আসে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত কাউসার হোসেন পাটওয়ারীর সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তার সন্ধানে বাড়ি গেলে তার স্ত্রী খুর্শিদা জানান, বশির আমাদের কোন টাকা দেয় না আমার স্বামী তার কোন কাজ নেয়নি। উল্টো তিনি ভুক্তভোগীকে এমপি, মন্ত্রী, রাজনৈতিক নেতাদের ভয় দেখিয়ে হুমকি ধমকি দেয়।
এব্যাপারে চাঁদপুর পুলিশ সুপার কার্যালেয়ে প্রতারক কাউছার হোসেন পাটওয়ারীর ও তার স্ত্রী খুর্শিদা বেগমের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com