Home / Breaking News / কবি কৌশিক ভট্টাচার্য্য এর গল্প ” ফুলের মতো চুল “

কবি কৌশিক ভট্টাচার্য্য এর গল্প ” ফুলের মতো চুল “

গল্প
ফুলের মতো চুল
@ কৌশিক ভট্টাচার্য্য
6.1.22
#
সুন্দরী মেয়েটা লাজুক হাসি হেসে বলল,”আমি যেমন ফুলের মতো সুন্দর,তেমনি ফুলের মতো চুল চাই।” ওকে নিয়ে গেলাম আমার বন্ধু বানানের সেলুনে।কথাটা শুনেই,বাবান বলল,”হয়ে যাবে।বসুন ম্যাডাম।” আমি বললাম,”আমি থাকলে কোনো অসুবিধে নেই তো?” ভাবনা বলল,”না, না,তুই থাক না।”
শুরু হল বানানের কাজ।মেয়েটার রেশমসদৃশ কেশদাম ও একবার শ্যাম্পু স্প্রে করে,রেখে দিল কয়েক মিনিট।তার পর, সযত্নে ব্রাশ করছে চিরুণীর আলতো ছোঁয়ায়,আমার দুই চোখ মুগ্ধ হয়ে তাই দেখছে।এবার বাঁ কান থেকে ডান কান অবধি চুল ভাগ করল।এবার,বাবান ওকে জিজ্ঞেস করল, “চুলের বাউন্স আর ভলিউম রাখবেন তো?” মেয়েটা ঘাড় নেড়ে সায় দিল।
বাবান বলল,”প্রথমে পেছনের চুল ইউ কাট করবো,আর ঐ গাইডলাইন অনুযায়ী বাকি চুল কাটিং করবো।মেয়েটা বলল,”কিন্তু ফুলের মতো লুক আসবে কি করে?” ভাবনা বলল,”ম্যাডাম,আমি পনেরো বছর এই লাইনে আছি।আপনি শুধু দেখে যান।”
পেছনের চুল ক্রাউন এরিয়ায়,180 ডিগ্রি কোণে তুলে,ভাঁজ করে,ফুলের মতো চারপাশে ছড়িয়ে দিয়ে ছোটো,বড়,অসমান চুল ছাঁটল বেশ কয়েকবার।এবার দু পাশের চুল মিশিয়ে, ফুলের লুক দিল।এবার সামনের চুলের বাঁ দিকের অংশ কেটে,তার পর,বাঁ দিক ও মাঝখানের চুল মিশিয়ে,তেরছাভাবে কাটল।এবার সামনের পুরো চুলটা একসাথে ভালো করে মিশিয়ে,চুড়োয় তুলে,ভাঁজ করে,ফুলের মতো করে ছড়িয়ে,সব অসমান অংশ গোল করে ছাঁটল।শেষে,পেছনের পুরো চুল ভাগ করে,একইভাবে ওপরে তুলে,পুরো চুলটাকে একটা সুদৃশ্য রূপ দিল।
মেয়েটা বলল, “এবার কি হেয়ার ফ্রায়ার দিয়ে চেক করে দেখবেন?” এ কথা শুনে,বাবান এক গাল হেসে বলল,”কোনো দরকার নেই। তুমি আয়নায় দেখে নাও।” মেয়েটা আয়নায় দেখে নিয়ে বলল,”দারুণ।ইস,আপনি এত যত্ন করে,আমার চুলটাকে ফুলের মতো করে দিলেন,আমার ইচ্ছে করছে….” বাবান বলল,”কি ?কি ইচ্ছে করছে?” মেয়েটা হেসে গড়িয়ে পড়ল। বলল,”যা:,বলতে নেই।আপনি তো পুরুষ মানুষ,আপনি বোঝেন না,আমি কি বলতে চাইছি।” আমি বাবানকে বললাম,” তোর তো কপাল খুলে গেল।এক সুন্দরী তোকে এই সব বলছে।বা:!”

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com