Breaking News
Home / Breaking News / কবি মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ এর গল্প ” সহজ মানুষ “

কবি মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ এর গল্প ” সহজ মানুষ “

সহজ মানুষ
মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ
৩/১/২২
—————-
ঝুমুরের বিয়েটাও হয়ে গেছে। তালুকদার পুত্র তালেবের সাথে এই বিয়েটাকে বাহবা দিতে শুরু করলো সবাই।কারন ঠেলেঠুলে এইচএসসির দরজায় কড়া নাড়তে থাকা ঝুমুরকে নিয়ে বাবা- মা’র টেনশান ছিল বিস্তর। বাগানের মালি, নিঝুম কনফেকশনারীর সাহিল,সুমন ডেকোরেটরের হায়াৎ আংকেল,রুকুন মাস্টার, দুলাল পাগলা,আনজু প্রফেসার সবাই ঝুমুরকে ভালোবেসেই বিয়ে করতে চেয়েছিল। কিন্তু ওর মেডিকেল রিপোর্ট ফেসবুকে ভাইরাল করে দিয়েছে তালেব।আর জেনেশুনেই তালেব হাফম্যাড ঝুমুরকে বিয়ে করতে যাচ্ছে। এজন্য ঘটকের কুটনামীতে নগদ আট লাখ টাকা,গোল্ড,আর ফার্নিচারের চুক্তিতে ঝুমুরের বাবাকে মেনে নিতে হয়েছিল।
আমি ইহাকে পাইলাম,কাহাকে পাইলাম—-
তালেব মণ্ডল এধরনের রাবিন্দ্রিক রচনার ধার ধারে নি কখনও। কেবলমাত্র ঝুমুরকে একবার দেখেই তার হাঁটার স্টাইল, চোখের ভুরু,হাসির অর্থ সব কিছুর জন্য এ প্লাস দিয়ে এসেছে।
বিয়ের দিন কখন যে ভেতর থেকে খবর আসে যে,আপনাদের ছেলেকে ভিতরে নিয়া আসেন –এধরনের আহ্বানের জন্য ওঁৎ পেতেছিল আর পেটের ভেতরের কক্ষ থেকে টক,মরিচীয় ঝাঁঝালো গন্ধ আসছিল।
বিয়েবাড়ির বছরকামলা বকুল এসে বলা মাত্রই তালেব হাফম্যাড ঝুমুরের জন্য ব্যাকুল হয়ে ওঠে।
কিন্তু বাড়ির সামনে বিয়ের গেইটে বরযাত্রীর সাথে আগত তালেবের দোস্তো আয়নালের ঢেলঢেলে পাঞ্জাবির চারুকলা, সিগারেটের নীল ধূয়া,পেছনের বেণী করা চুলের প্রতি মেয়েদের আগ্রহটাও বেশ বাড়িয়ে দিয়েছে সন্দেহ নেই। সকলের আন্তরিক শুভেচ্ছা মনে হচ্ছে আয়নালের জন্যই পূর্ব নির্ধারিত ছিল।
আয়নালকে বাইরে দাঁড় করিয়ে রেখে ভিতরে গেলো তালেব।
ওকে অবাক করে দিয়ে ঝুমুর বলে ফেললো, আপনার দোস্তো আয়নালকে বাইরে দাঁড় করিয়ে রেখেছেন কেন?
আরে ওঠার কথা বাদ দাও। ওঠা আস্ত একটা বদ।চালচুলো নেই, চেহারা নেই,খালি আবলতাবল প্যাচাল,আর লেখালেখি।কেন যে তার জন্য মেয়েছেলেরা পাগল,বুঝিনা। আনতেই চাই নাই।নিজেই বেহায়ার মত বাসে উঠে এসেছে। নামিয়ে দিতে পারি নাই।হাদাটার জন্য আফটার অল আমার একটা সফট কর্ণার আছে।
খাবার টেবিলেও সবাই দেখলাম ওর পেছনে লেগে আছে। আমিও যে জামাই,এইদিকে কারোরই মন নাই।এখন দেখি, তুমিও!হাউ ফানি!
ঝুমুরের বাবাকে সবাই মিলে স্ট্রেচারে করে পিকাপে ওঠাচ্ছে।এটি তার সেকেণ্ড টাইম স্ট্রৌক।
সারা বাড়ি তছনছ হয়ে যাচ্ছে।ঝূমুরকে বিয়ে পড়িয়ে কাজি সাহেব চলে গেছেন। লেনদেন নিয়ে তালেবের চাচাতো বোনের হাজব্যাণ্ড অনেকগুলো খারাপ কথা বলেছেন। ঝুমুর হাফম্যাড, এটাও বলেছেন। ঝুমুরকে পেটে নিয়ে ওর মা এই বাড়িতে বিয়ে বসেছিল।এই কষ্টে ওর আসল বাবা আত্মহত্যা করেছে—- সকল প্রকার খারাপ কথা বের হচ্ছিল ,আর ঝুমুরকে আহত করছিল।
বরযাত্রীদের বেশিরভাগ লোকজন খেয়েদেয়ে চলে গেছে।বরের জন্য সাজানো মাইক্রোটা বাইরে।ড্রাইভার গাড়িটার স্টার্ট দিয়েছে।
তালেব ধমকাচ্ছে ড্রাইভারকে। ধমকাচ্ছে আয়নালকে।
হা– করে কী দেখছিস?বৌকে গাড়িতে তোলার ব্যবস্থা কর্।
তুই গাড়িতে চুপচাপ বসতে বলে আয়নাল ঝুমুরকে বুঝিয়ে সুজিয়ে ওর(ঝুমুরের) বাবাকে গাড়িতে উঠিয়ে নিয়ে হাসপাতালে রওনা দিয়েছে।
ঝুমুর বরের গাড়িতে না উঠে আয়নালের পাশে বসে পড়েছে।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com