Home / Breaking News / কবি সোনালী আদক এর দুর্দান্ত কবিতা ” তুমি না ছেলে “

কবি সোনালী আদক এর দুর্দান্ত কবিতা ” তুমি না ছেলে “

তুমি না ছেলে
সোনালী আদক
২৩/১২/২১

পুরুষের কান্না দেখেছো কি কখনো, নিকোটিনে পোড়া মন,
সম্মুখে ওরা অধরা থাকে, বেছে নেয় অন্ধকার গৃহ কোণ।
জন্ম থেকেই দায়িত্বের বোঝা, ভবিষ্যতের প্রদীপ তুমি না ছেলে,
কাঁধে তুলে নাও চরম সিদ্ধান্ত ,কী করে চলবে ভয় পেলে।
সোনার আংটি বাঁকা হয় নাকি, তোমায় হতে হবে খাঁটি সোনা,
ক্লাসে টপার ,বিশ্ব জোড়া নাম ডাক, তোমার সমতুল্য হাতে গোনা।
সুপ্রতিষ্ঠিত ,হাই সোসাইটির অভাবে ,কতো প্রেম থেকে গেছে অধরা,
প্রতিশ্রুতির বাঁধ মানেনা, জীবন সঙ্গিনী আজ অন্যের বাহুমোরা।
স্মৃতির স্মরণী বেয়ে, রূপকথা গুলো দিয়ে গেছে কেবলি ফাঁকি,
বাড়িতে বৃদ্ধ বাবা মা’র সাথে দিদি, বোনের বিয়েটা এখনো বাকি।
বুকের মধ্যে শত ক্ষত সয়ে, চোখের জল গিয়েছে শুকিয়ে,
চেনা মুখ গুলোই অচেনা হয়েছে ,মুখোশের আড়ালে লুকিয়ে।
বন্ধুরা আজ, চাকরি বাড়ি গাড়ি ,সংসার নিয়েছে বেশ গুছিয়ে,
হৃদয় পুড়েছে, শতবার ভেঙেছে ,কেউ অশ্রু দেয়নি মুছিয়ে।
জীবন যুদ্ধে পরাজয় সয়ে, কটুক্তিতে বিষিয়ে উঠেছে দগ্ধ ক্ষত,
বেকারত্বের জ্বালা, দাবানল বুকে, রক্ত পাতে অন্তর শোকাহত।
দিশে হারা সে নিজের কাছে নিজেই, চরম লাঞ্ছনার শিকার,
ঘামে ভেজা শহর শূন্যতা হেনেছে, স্বপ্নেরা জানায় ধিক্কার।
নতুন প্রভাতের সূচনায়,আশা ছাড়েনি হোক না পকেট গড়ের মাঠ,
নিরাশার মেঘ ঘটায় নি বরষা,চোখ ভিজে যায় ভিজে যায় চৌকাঠ।
হতাশার জাল জড়িয়ে বুকে ঝড় ওঠে ,ওঠে যে ঘোর তুফান,
থামতে মানা জীবন যুদ্ধে, ছিনিয়ে নিতে হবেই যোগ্য সন্মান।
প্রান পনে চালায় রেশের ঘোড়া ,জোয়ায় বাজি রক্ত ঘাম ফেলে,
ঝরুক রক্ত পড়ুক ঘাম, থামতে মানা, মনে রেখো তুমি না ছেলে।।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com