Home / Breaking News / কবি শাহ্ কামাল এর কবিতা “সহর আলীর গ্রামের আখ্যান”

কবি শাহ্ কামাল এর কবিতা “সহর আলীর গ্রামের আখ্যান”

সহর আলীর গ্রামের আখ্যান
— শাহ্ কামাল

সহর আলী গ্রামের মানুষ মধ্যবিত্তের ঘরে
ছেলেপুলে ব্যস্ত ওরা, নিজেই বাজার করে।
দেখি সেদিন থলে হাতে কাঁচা বাজার ঘুরে,
সহর আলী বেজার মুখে দাঁড়িয়ে আছে দূরে।
হাঁটি হাঁটি পা পা করে মুদি দোকানে সে গেল,
তাকে দেখে মুদি বেটার লাভের হাসি পেল।
‘তেলের লিটার কত করে? কমল কি তার দাম?’
‘কি কন মশায়, বাড়ছে মেলা, দেখেন ব্রান্ডের নাম।
একশো-পঞ্চাশ প্রতি লিটার, নিলে বলেন মাপি।’
‘এত্তো! গরীব ঘরে জন্ম নিয়া হলাম শেষে পাপী’
‘ কি আর করা, বাড়ছে অনেক; দাম আন্তর্জাতিক।’
‘বুঝলাম ঢের, জীবনটা যে কত মর্মান্তিক’।’
দাম বাড়ছে ভুরি ভুরি মাইনে আগের মতোই,
যায় না কি আর কিছুই করা? দামটা বাড়ুক যতোই!
বাজেট ঘেটে দু’লিটার কম তেল কিনল সহর
ডালের কিলো ত্রিশ বেশি, শুনেই বাড়ে প্রহর।
যায় কী ভাবা এই অবিচার, মরবে সকল গরীব,
অযুত টাকা খরচা করে করবে মরার জরিপ।
সহর আলীর লম্বা লিস্টি, মাসের শুরু আজ
কাঁচা মরিচে ঝাল বেশি, বাড়ছে পেঁয়াজের ঝাঁঝ।
শাক-সব্জির দামও মেলা! দোষ দিবো ভাই কারে?
গরীব যারা খেয়ে বাঁচে, তাদেরই সবাই মারে।
মুখ ফোটে না বলে সবার পকেট যে হয় শূন্য
সেই টাকাতে ব্যালেন্স বাড়ে, ধনী কামায় পূণ্য।
ধার দেনাতে যায় না চলা শোধতে হবে ঋণ,
এমনি করে কিরমিরিয়ে কেমনে যাবে দিন?
সহর আলীর কপাল জুড়ে দীর্ঘ একটা ভাঁজ,
লিস্টি ধরে সদাইপাতি কেমনে কিনি আজ?
ডিম কিনি নাই, মুরগী বাকি, দাম বেড়েছে ঢের!
বাকি নিলেও শোধতে হবে, পরে যে পাবো টের।
বড় লোকের এতো ক্ষুধা! পেট ভরে না টাকায়,
জিম্মি করে পিষে মারে তাদের লোভের চাকায়।
হাত পাতে না মধ্যবিত্ত, কষ্টে ভুগে মরে,
তাদের পকেট কেটে ওরা নিজের পকেট ভরে।
উন্নয়ন কী চিবিয়ে খাবো? পেটে ভীষণ জ্বালা,
বাঁচলে খেয়ে তবেই মোরা পরাবো গলায় মালা।
কষ্ট ক্লেসে বাজার শেষে ফিরছে সহর আলী,
লিস্টি ধরে হয়নি কেনা পকেট যে তার খালি।
কেউ জানে না মনের বেদন, আগুন জ্বলে বুকে,
বিষ কিনে দে খেয়ে বাঁচি, থাকবো ভীষণ সুখে।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com