Breaking News
Home / Breaking News / যেসব কারণে জামায়াত ছাড়তে চায় বিএনপি

যেসব কারণে জামায়াত ছাড়তে চায় বিএনপি

অনলাইন নিউজঃ
জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গে বিএনপি দূরত্ব রক্ষা করে চলছে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে। কিন্তু সাম্প্রতিককালে জামায়াতকে ছেড়ে দেওয়ার আনুষ্ঠানিক উদ্যোগ বিএনপির ভেতর থেকেই নেওয়া হয়েছে। কিন্তু কী কারণে এই উদ্যোগ—সে সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে নানা প্রত্যাশা ও রাজনীতির হিসাব-নিকাশের কথা।
দলটির নেতারা বলছেন, প্রথমত, জামায়াতকে ছাড়তে পারলে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা বিশ্বের পাশাপাশি প্রধান প্রতিবেশী ভারতেরও সমর্থন পাওয়া যাবে। দ্বিতীয়ত, জামায়াত পাশে না থাকলে উদার ও বামপন্থী দলগুলোকে নিয়ে বৃহত্তর ঐক্য গঠন করা যাবে। তৃতীয়ত, ‘জামায়াত-বিএনপি বা খালেদা-নিজামী’ বলে জনমনে সৃষ্ট নেতিবাচক পাবলিক পারসেপশনও এতে দূর হবে বলে মনে করছে বিএনপি। দলটির নেতাদের মতে, বৈশ্বিক রাজনৈতিক হিসাব-নিকাশের পাশাপাশি আফগানিস্তানে তালেবানের উত্থানের পর দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় সৃষ্ট নতুন পরিস্থিতি থেকেও বিএনপির ‘লাভ’ নেওয়ার সুযোগ আছে। কারণ ওই ঘটনার পরে ডানপন্থী তথা ইসলামপন্থী শক্তির উত্থানের আশঙ্কায় এ অঞ্চলের দেশগুলো নতুন করে হিসাব-নিকাশ কষছে বলে বিশ্লেষকদের মধ্যে আলোচনা আছে। ফলে ভারত ও চীনের সঙ্গে ভারসাম্য রক্ষার কূটনৈতিক কৌশল নিয়ে অগ্রসর হতে চাইছে বিএনপি। দলটির নেতাদের মতে, ভারত ও চীনের সঙ্গে ভারসাম্যমূলক সুসম্পর্ক রক্ষা করে চলার কারণেই বর্তমান সরকার ক্ষমতায় টিকে আছে। তাই জামায়াতকে এখনই দূরে রেখে বৃহৎ শক্তিগুলোর সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরি করা অত্যন্ত জরুরি বলে বিএনপির উদারপন্থী নেতারা মনে করেন। তাঁদের মতে, ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক ছাড়া বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে পরিবর্তন আনা অত্যন্ত কঠিন, যদিও স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকারসহ দু-একজন নেতা এর বিরোধিতা করছেন। কিন্তু দলটির মধ্যে দক্ষিণপন্থী নেতার সংখ্যা কমে যাওয়ায় উদারপন্থীদের মতামতই গুরুত্ব পাচ্ছে বলে জানা গেছে।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com