Breaking News
Home / Breaking News / ■ রিপু করা পাঞ্জাবী এবং স্যাডল জ্যাকস প্যান্ট ■

■ রিপু করা পাঞ্জাবী এবং স্যাডল জ্যাকস প্যান্ট ■

■ রিপু করা পাঞ্জাবী
এবং স্যাডল জ্যাকস প্যান্ট ■

বিকেল হলেই শহরের সেরা একটি হোটেলের পিছনের টেবিলে চার পাঁচ জন বন্ধু মিলে সকাল বিকেল চায়ের সাথে আড্ডা দিতাম৷ আমরা এটা করতাম যখন SSC পাশ করে কলেজে নতুন ভর্তি হয়েছি ঠিক সেই সময়৷

বৃহস্পতিবার বিকেলে আমার বাবা এক দিনের ছুটিতে বাড়িতে চলে আসতেন৷ তিনি পানি উন্নয়ন বোর্ডে চাকুরী করতেন৷ এরকমই এক বৃহস্পতিবার বিকেলে আমদের আড্ডার চায়ের টেবিলে হঠাৎ করে বাবা হাজির৷

” রিটন, ওঠ বাবা৷ চল মর্কেটে যাব৷” আমার হাত ধরে হোটেল থেকে বের করে নিয়ে বাবা নওগাঁর সেরা মার্কেটে গেলেন৷ একটি গার্মেন্টসে৷ বাবা আমাকে বললো ” বাবা, কি নিবা তুমি?”

আমি বাবাকে বললাম “আমি….?” বাবা বললোঃ “হুম, তোমার জন্য প্যান্ট কিনব। বগুড়ার ছেলেরা দেখলাম ব্লু জিন্স পরে বেড়াচ্ছে৷ দেখতে হেব্বী লাগে৷ আমি জানি আমার একমাত্র ছেলেটা পড়লে ওদের থেকেও বেশি ভালো লাগবে”৷ বলেই তিনি দোকানদারকে বললেন “স্যাডল জ্যাক্স জিন্স আছে? নেভী ব্লু কালারের?”৷

দোকনদার বের করে দিলেন৷ ঐ সময়ের পুরো ৯৯৯ টাকা দিয়ে আমার বাবা একটা প্যান্ট আমাকে কিনে দিলেন৷ মনে মনে তো আমি মহা খুশি ঐ সময়ের সেরা ব্রান্ডের প্যান্ট হাতে পেয়ে৷ রাস্তায় এসে একটা রিক্সা ডেকে বাবা উঠলেন, আমাকেও উঠতে বললেন৷ কিন্তু তখন আমার অন্য একটি কাজ থাকায় বাবাকে প্যান্টের ব্যাগটা হাতে দিয়ে বললামঃ “বাবা তুমি যাও,আমি পরে যাব”৷ বাবা বললেনঃ আরে নাহ্, চল৷ প্যান্ট পড়ে তোমাকে কেমন লাগে আমি আগে দেখবো৷”
“নাহ্ঃ বাবা, তুমি যাও৷ আমি এক ঘন্টার মধ্যেই বাসায় আসছি।”

বাবা একটু ভেবে বললোঃ ” ঠিক আছে৷ জলদি এসো বাবা। প্যান্ট পরে তোমাকে কেমন লাগে না দেখা পর্যন্ত আমি শান্তি পাবো না৷”

রিক্সা ঘুড়িয়ে বাবা বাড়ির দিকে রওনা হলেন৷ মৃদু বাতাস বইছে তপ্ত দুপুরে৷ হঠাৎ প্রচন্ড ধাক্কা লাগলো আমার বুকে৷ মুচড়ে উঠলো হৃদপিণ্ড ৷ হাল্কা বাতাসে বাবার পাঞ্জাবীর ঝুলটা পিছনের দিকে উড়ছে৷ চোখে পড়লো বাবার পাঞ্জাবীর সেই উড়ন্ত একটা অংশ ছিড়ে গেছে৷ এবং বাবা সেখানে পরম যত্নে রিপু করেছেন৷ তবুও বোঝা যাচ্ছে ওটা ছেড়া পাঞ্জাবী, রিপু করা।

মৃদু বাতাসে সেই ছেঁড়া রিপু করা অংশ উড়ছে৷ যদিও তিনি একজন অফিসার৷ ছেড়া পাঞ্জাবী পড়া বাবার হাতে একমাত্র পুত্র সন্তানের জন্য কেনা বাজারের সেরা “স্যাডল জ্যাক্স” জিন্স প্যান্ট৷

আজ বাবা নেই৷ তবুও স্মৃতিটা আজও কাঁদায় আমাকে……।

আমার নতুন প্যান্ট,
বাবার ছেঁড়া পাঞ্জাবী
রিপু করা অংশ বাতাসে উড়ছে ……….

■ রিটন মোস্তাফা
বাংলাদেশ

(বাবা গত হয়েছেন ২০০০ সালে)

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com