Breaking News
Home / Breaking News / চাঁদপুরে প্রবাসীর স্ত্রীকে অপহরণ করে তুলে নিয়ে আটকে যৌন নির্যাতন

চাঁদপুরে প্রবাসীর স্ত্রীকে অপহরণ করে তুলে নিয়ে আটকে যৌন নির্যাতন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
চাঁদপুরে প্রবাসীর স্ত্রীকে অপহরণ করে তুলে নারায়ণগঞ্জ নিয়ে অজ্ঞাত স্থানে আটকে রেখে বেশ কয়েক মাস যৌন নির্যাতন করেছে এক বখাটে যুবক।
বিষ্ণুদী, দক্ষিণ জি.টি রােডের ভাড়াটিয়া,মৃত কবির শেখের ছেলে মাদক সম্রাট বকাটে শেখ রাসেল সুমন প্রবাসীর স্ত্রীকে তুলে নিয়ে যৌন নির্যাতন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অবশেষে অলিখিত স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রেখে মোবাইলে অপ্রীতিকর ছবি তুলে ফেসবুকে ভাইরাল করার ভয় দেখিয়ে চাঁদপুরে এনে বাসা ভাড়া নিয়ে সেখানে পুনরায় আটকে রেখে নির্যাতন শুরু করে।
মঙ্গলবার দুপুরে বি টি রোডের আলী দাখিল মাদ্রাসা সংলগ্ন রহমত আলী মালের বাসার ২য় তলার আটকে রেখে বখাটে সুমন প্রবাসীর স্ত্রীকে নির্যাতন চালায়। এসময় তার ডাক চিৎকারে আশেপাশের লোকজন দৌড়ে আসলে বখাটে শেখ রাসেল সুমন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।
অবশেষে স্থানীয়রা প্রবাসীর স্ত্রীকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে।
নির্যাতিত প্রবাসীর স্ত্রী মুঠোফোনে তার পরিবারকে জানালে তারা হাসপাতালে এসে তার চিকিৎসা শেষে চাঁদপুর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

নির্যাতনের শিকার প্রবাসীর স্ত্রী জানান, শহরের চেয়ারম্যান ঘাট এলাকায় প্রবাসী স্বামী জায়গা কিনে বসতবাড়ি নির্মাণ করে সেখানেই দুই সন্তান নিয়ে বসবাস করি। কিন্তু বখাতে শেখ রাসেল সুমন প্রায় সময় আসা-যাওয়ার পথে উত্যক্ত করত ও আজেবাজে কথা বলতো। গত ৭ মাস পূর্বে বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথে বখাটে সুমন তার সঙ্গীর দুজনকে সাথে নিয়ে জোরপূর্বক প্রাইভেটকারে তুলে ভয়-ভীতি দেখিয়ে নারায়ণগঞ্জে নিয়ে একটি বাসায় আটকে রেখে শারীরিক নির্যাতন চালাতে শুরু করে। সে মোবাইলে আপত্তিকর ছবি ধারণ করে ও স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রেখে বড় ধরনের ক্ষতি করবে বলে হুমকি দেয়। মান সম্মানের কথা চিন্তা করে কাউকে না জানিয়ে নির্যাতন সইতে থাকি। অবশেষে নারায়ণগঞ্জ থেকে চাঁদপুরে এনে বাসা ভাড়া নিয়ে পুনরায় নির্যাতন চালাতে শুরু করে। এই ঘটনা মাকে ফোন করে জানালে সে ক্ষিপ্ত হয়ে ব্যাপক মারধর করতে শুরু করে। অবশেষে স্থানীয়রা উদ্ধার করে আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসা করায়। আমি এই লম্পট প্রতারক শেখ রাসেল সুমনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানাই।
এদিকে প্রবাসীর স্ত্রীকে সাত মাস পূর্বে অপহরণ করে তুলে নিয়ে নির্যাতন করার পর তার প্রবাসী স্বামী চাঁদপুর মডেল থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেন। প্রবাসীর স্ত্রীর ঠিকানা না জানার কারণে তাকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। অবশেষে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com