Breaking News
Home / Breaking News / মতলবে মাল্টা চাষে আল আমিনের ভাগ্যবদল

মতলবে মাল্টা চাষে আল আমিনের ভাগ্যবদল

ফারুক হোসেন ::
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় মাল্টাচাষ করে সফল হয়েছেন আল-আমিন প্রধান। সারিবদ্ধ গাছে গাছে ঝুলছে মাল্টা। প্রতিটি গাছে এতোবেশি মাল্টা ধরেছে যা ফলের ভারে গাছের ডালগুলো মাটির দিকে নুয়ে পড়েছে। অল্প টাকা ও শ্রমে বেশি লাভবান হওয়ায় মাল্টা চাষে আগ্রহী হচ্ছে এ চাষি।

উপজেলার কলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ডের সদস্য আল-আমিন প্রধান সখের বসে প্রথম ২০ শতক জমিতে মাটি ফেলে উঁচু করে মাল্টার চাষ শুরু করে চার বছরে পূর্বে। বছর যেতে না যেতেই গাছে ফল আসতে শুরু করে। ফল আসার প্রথম বছর অর্ধলক্ষ টাকা বিক্রি করে মাল্টা। প্রতিবছরেই মাল্টা দ্বিগুণ টাকা বিক্রি করতে পারে। এ বছর ৩ লক্ষ টাকা বিক্রির আশা করছেন।

আল-আমিন বলেন, বাগানে মাল্টার পাশাপাশি ২০ জাতের দেশি-বিদেশি ফল গাছ লাগিয়েছেন। তবে মাল্টা চাষের ওপর তিনি বিশেষ নজর দিয়েছেন। তাঁর বাগানে বারি মাল্টা-১ (পয়সা মাল্টা), থাইল্যান্ডের বেড়িকাটা মাল্টা ও ভারতীয় প্রলিত মাল্টা জাতের গাছ আছে। চারা রোপণের দুই বছরের মধ্যে ফলন শুরু হয়। তিন বছর পর একটি গাছে পূর্ণাঙ্গভাবে ফল ধরা শুরু করে। তিন বছর পরে গাছ প্রতি মৌসুমে ৪০০ থেকে ৪৫০টি মাল্টা ধরে। তাঁর দেখাদেখি এলাকার অনেক বেকার যুবক মাল্টাবাগান করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

উপজেলা কৃষি কর্তকর্তা সালাউদ্দিন বলেন, মতলব উত্তরে ফল চাষে আগ্রহীদের আমরা সব সময় উৎসাহ দিয়ে থাকি। মাল্টাচাষ করে আলা-আমিন সফল হয়েছে। এছাড়া নতুন যারা আগ্রহ নিয়ে মাল্টাচাষ করতে চাচ্ছেন, তার জন্য উপজেলা কৃষি অফিস সর্বদাই সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিবে।

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্নেহাশীষ দাশ বলেন, আল-আমিন প্রধান লক্ষ্য ঠিক রেখেছেন বলেই মাল্টাচাষে সফল হয়েছে। তার মাল্টাচাষ দেখে অনেকেই এখন মাল্টাচাষ করছেন। ভালো কাজগুলোতে সকলের উৎসাহ রাখা প্রয়োজন।

চাঁদপুরে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান বলেন, মতলবের কলাকান্দায় এসে জানতে পারি আলআমিন প্রধান নামের একজন ইউপি সদস্য মাল্টার বাগান করেছে, তাই উৎসাহ নিয়েই তার মাল্টার বাগান দেখতে গিয়েছি। তাকে দেখে মাল্টাচাষে অনেকেই আগ্রহ দেখাচ্ছে মাল্টাচাষে।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com