Breaking News
Home / Breaking News / বিএনপির ডাকা হরতাল ঢিমেতালে পালিত

বিএনপির ডাকা হরতাল ঢিমেতালে পালিত

ঢাকা প্রতিনিধিঃ উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগে ডাকা বিএনপির হরতালে স্বাভাবিক রয়েছে রাজধানীর গণপরিবহন চলাচল। রোববার (২ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকেই বিভিন্ন রুটে বাস চলাচল করতে দেখা গেছে। পরিবহন সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, বিএনপি হরতালের কোনো প্রভাবই রাজধানীতে নেই

সকাল সোয়া সাতটা কমলাপুর এলাকায় কর্মব্যস্ত দিনের মতো যানজটও দেখা গেছে। পাশাপাশি মতিঝিলে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। পল্টন মোড়সহ গুলিস্তান এলাকাতেও প্রচুর যানবাহন রয়েছে। রাজধানীর অন্যান্য এলাকাতেও হরতালের কোনো প্রভাব দেখা যায়নি।
সদরঘাট-কেরানীগঞ্জে এলাকায় ভোর থেকেই সবপ্রকার গণপরিবহন ছেড়ে যেতে দেখা গেছে। অন্যদিনের মতো কর্মজীবী মানুষেরা তাদের কর্মসংস্থানে স্বাভাবিকভাবেই যাওয়া-আসা করছেন।
মিরপুর-১০ যাওয়ার জন্য সদরঘাট এলাকায় বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন রাসেল চৌধুরী। তিনি সারাবাংলাকে বলেন, ‘মিরপুর যেতে হচ্ছে অফিসের কাজে। প্রথমে ভেবেছিলাম দীর্ঘদিন পর বিএনপির ডাকা হরতালে না জানি কি হয়। কিন্তু রাস্তায় এসে দেখছি সব কিছুই স্বাভাবিক রয়েছে। গণপরিবহনসহ লোকে লোকারণ্য রয়েছে সড়কগুলোতে। হরতালের কোন প্রভাব দেখছিনা।’
বিহঙ্গ পরিবহনের চেকার শেখ সুমন হাসান জানান, গতকালকে নির্বাচনের জন্য রাজধানীতে সব গণপরিবহন বন্ধ ছিলো। আজ সকাল থেকে আবার গণপরিবহন চলতে শুরু করেছে। সকাল থেকে এই এলাকায় হরতালের কোনো প্রভাব দেখা যাচ্ছেনা। অন্যদিনের মতোই গণপরিবহণ স্বাভাবিকভাবে চলছে।
তাঁতী বাজার একালায় ডিউটিরত পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শ (এএসআই) মো. আবু তালেব জানান, সকাল ৬টা থেকে পুলিশ ডিউটি শুরু করেছে। যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর প্রতিরোধ করতে আমরা প্রস্তুত। এছাড়াও এই এলাকায় প্রতি মোড়ে মোড়ে পুলিশের পাহারা দেখা গেছে।
সায়েদাবাদ বাস মালিক সমিতির দফতর সম্পাদক গোলাম সামদানী বলেন, ‘সকাল থেকেই পরিবহন চলছে। এখনও কোনো বাধার শিকার হয়নি কোনো পরিবহন।’
একই কথা বললেন মহাখালী বাস টার্মিনালের মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কালাম। তিনি বলেন, ‘ময়মনসিংহ, জামালপুরসহ আন্তঃজেলাগামী সকল পরিবহন মহাখালী থেকে ছেড়ে যাচ্ছে। এখনও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।’
এখন পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটলেও বিএনপির ডাকা হঠাৎ হরতালে উদ্ভূত পরিস্থিতি সামাল দিতে সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও স্থাপনায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে প্রিজন ভ্যান, জলকামান, রায়টকার।
অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) কৃষ্ণপদ রায় বলেন, ‘দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে পুলিশ এমনিতেই কড়া নিরাপত্তার চাদরে ঘিরে রেখেছে রাজধানী ঢাকা। বিএনপি হরতাল ডাকায় নিরাপত্তার বিষয়টি আরও জোরদার করবে। জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় রোববার সারাদিন পুলিশ সতর্ক অবস্থানে থাকবে। সাধারণ মানুষের কোনো ক্ষতি হতে দেবে না। শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন থাকবে।’

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com