Home / Breaking News / কচুয়ায় মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ এবং থানায় অভিযোগ করায় কুপিয়ে ৫ জনকে আহত

কচুয়ায় মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ এবং থানায় অভিযোগ করায় কুপিয়ে ৫ জনকে আহত

মফিজুল ইসলাম বাবুল,কচুয়াঃ
মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ এবং থানায় অভিযোগ করায় চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার গোহট দক্ষিন ইউনিয়নের খাজুরিয়া-লক্ষিপুর বাজারে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে স্থানিয় পুলিশিং কমিটির সভাপতি সাবেক ইউপি সদস্য মোঃ মফিজুল ইসলাম (৬০), শরিফুল ইসলাম (২৩), মোঃ সাকিল (১৮), ইমাম হোসেন (৩৫) ও মোস্তাকিম হোসেন মিরাজকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে দুর্বৃক্তরা।

আহতরা রাত ১২টার দিকে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে চিকিৎসা নিয়ে ভর্তি হয়।
জানাযায়, উল্লেখিত আহত মাদক প্রতিবাদকারী শরিফুল ইসলাম বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে বাড়ী থেকে স্থানিয় রহিমানগর বাজারের টিএনটি রোডে আসলে মাদক চক্র দুর্বৃক্তরা তাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে।

এ মারধরের ঘটনায় শরিফুল ইসলাম বাদী হয়ে এ দিন বিকেলেই ৭জনের নাম উল্লেখ করাসহ অজ্ঞাত আরো ১০/১২ জনকে বিবাদী করে কচুয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। এ অভিযোগ এবং মারধর ঘটনাকে কেন্দ্র করে সন্ধায় শরিফুল ইসলাম লক্ষিপুর বাজারে প্রতিপক্ষ শামছু মিয়ার ছেলে সোহাগের সাথে কাথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তাদের উবয়ের মধ্যে মারধরের সৃষ্টি হলে রাত সাড়ে ১০টার দিকে শরিফুল ইসলামসহ ওই প্রতিবাদীরা রক্তাক্ত জখমের শিকার হয়।

এতে প্রতিপক্ষ সোহাগও আহত হয়েছে বলে জানাগেছে। আহত ওই ইউপি সদস্য মফিজুল ইসলাম জানান, শামছু মিয়ার বড় ছেলে তুহিন (২৮) একজন মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী। সে ২০১৭ইং সালে সিরাজগঞ্জ জেলার শলঙ্গা থানায় এ এসআই পুলিশের পদে চাকুরী করাকালীন সময়ে চাঁদাবাজির একটি মামলায় প্রায় ৬মাস জেল খাটে। এ সময় ঘটনাটি তার গ্রেফতারের ছবিসহ জাতীয় দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ পায়।

এছাড়াও তুহিন দেশের একাধিক থানায় চাকুরীকালে বিভিন্ন অপরাধে জড়িত থাকায় চাকুরীচুত্য হয়ে নিজ গ্রাম এলাকায় এসে সঙ্গ-প্রাঙ্গ সৃষ্টি করে এই কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে। তার বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলেও জানান। আহত মফিজসহ ওই প্রতিবাদীরা দীর্ঘদিন থেকে তার এসব অপরাধের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে আসছে। কচুয়া থানার এসআই মনির হোসেন জানান, আমরা রাতেই ওসি সাহেবের নির্দেশে তুহিন গংকে গ্রেফতার করতে তার গ্রাম এলাকায় অভিযান চালাই। কিন্তু তাদের কাউকেও খুঁজে পাওয়া যায়নি। আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এদিকে রাতের হামলার ঘটনা নিয়েও আহত মফিজ মেম্বার গংদের মামলার প্রস্তুতি চলছে।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com