Breaking News
Home / Uncategorized / দুমাসের অভয়াশ্রম শেষে আজ নদীতে মাছ ধরতে নামছে জেলেরা

দুমাসের অভয়াশ্রম শেষে আজ নদীতে মাছ ধরতে নামছে জেলেরা

এম. রহমানঃ
ইলিশের পোনা জাটকা রক্ষায় পদ্মা-মেঘনায় মাছের অভয়াশ্রমে ২ মাসের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আজ থেকে ঝাকে ঝাকে ইলিশ ধরার লক্ষ্যে নদীতে নামছ অর্ধলক্ষাধিক জেলে। গতকাল ৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার রাত ১২টার পর (১ মে) থেকে জাল, ট্রলার, নৌকাসহ ইলিশ ধরার সরঞ্জাম নিয়ে পুনরায় মাছ শিকার করবে পদ্মা-মেঘনার জেলেরা। যদিও এতোদিন অসাধু জেলেদের জাটকা ধরা বন্ধ ছিলো না। কোনো কিছুকে তোয়াক্কা না করে সদর, হাইমচর, মতলব উত্তর ও দক্ষিণ উপজেলায় জেলেরা নদীতে জাটকা ধরার মহোৎসবে মেতে উঠেছিলো। এদিকে গতকাল নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার পর আজ থেকে ফের কর্মব্যস্ততা ফিরে আসবে জেলে, আড়তদার, বেপারী ও মৎস্যচালানীসহ সংশ্লিষ্ট সবার মাঝে। জমজমাট হয়ে উঠেছে ঝিমিয়েপড়া মাছের আড়তগুলো। জেলে, পাইকার, আড়তদারদের হাঁকডাকে মুখর হবে নদী পাড়ের আড়ত ও চাঁদপুর মাছঘাট। আজ থেকে নদীতে নামতে পারবে, তাই জেলেদের মাঝেও আনন্দ বিরাজ করছে।
তবে জেলা মৎস্য অফিস সূত্র জানা যায়, অভিযানের মেয়াদ শেষ হলেও কারেন্ট জাল ও জাটকার উপর নিষেধাজ্ঞা থাকছেই।
মৎস্য বিভাগ জানায়, নিষেধাজ্ঞা উপক্ষো করে জেলেরা যাতে জাটকাসহ ইলিশ শিকার করতে না পারে সেজন্যে দুই মাসে চাঁদপুর জেলার ৪টি উপজেলা থেকে মৎস্য বিভাগ, পুলিশ, নৌ-পুলিশ ও কোস্টগার্ড সমন্বয়ে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন টাস্কফোর্সের সর্বমোট ৪৩৮টি অভিযান পরিচালিত হয়েছে। এসব অভিযানে মাছ ধরার অপরাধে ১শ’ ৪৭ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদ- এবং ১ লাখ টাকা ৬০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এছাড়াও ৫৩ কোটি ৩২ লাখ টাকার মূল্যের ২৬৬.৬০৭ লাখ মিটার জাল ও ১৬.২০৬ মেট্রিক টন জাটকা এবং ৯টি মাছ ধরার নৌকা, বরফসহ ১টি ট্রলার জব্দ করা হয়েছে। জেলার ৪ উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলায় অভিযানের সফলতা অনেক বেশি বলে মনে করছেন সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com