Breaking News
Home / Breaking News / তারেক কোথায়? পাকিস্তান নাকি মধ্যপ্রাচ্যের অন্য কোন দেশে?

তারেক কোথায়? পাকিস্তান নাকি মধ্যপ্রাচ্যের অন্য কোন দেশে?

বিশেষ প্রতিনিধি।।
গত রোববার থেকে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে খোঁজখবর নেই তারেক জিয়ার। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বর্তমানে লন্ডনে পলাতক জীবন যাপন করলেও তার বাসার টেলিফোন থেকে শুরু করে ব্যাক্তিগত মোবাইলে গত তিন যাবত কেউ সংযোগ স্থাপন করতে পারেননি। এমনকি লন্ডনের মোবাইল নাম্বারে থেকে ব্যবহৃত হোয়াটস আপ, ভাইবারেও তারেকের সাথে কেউ যোগাযোগ করতে পারেনি এই ৩ দিন। লন্ডনের বিশ্বস্তসূত্র বলছে ভাইবার আ্যাপসে তারেকের অ্যাকাউন্টে 3 days ago লেখা ভেসে আসছে। বিষয়টি নিয়ে বিএনপি’র লন্ডনস্থ আড্ডাগুলোতে বেশ গুন্জন চলছে। তিনি বলেন, লন্ডনের কিংসটের বাড়িতে গিয়ে ফেরত এসেছেন বেশ কয়েকজন দলীয় নেতা।
জানা গেছে, তারেক রহমানের বাংলাদেশের পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়েছে ২০১৩ সালে। এতোদিন তিনি মূলত রাজনৈতিক আশ্রয়ে রয়েছেন লন্ডনে। ২০১৪ সালে তারেক রহমান লন্ডনের হোম মিনিষ্ট্রি থেকে বিশেষ ট্রাভেল ডকুমেন্ট সংগ্রহ করে সৌদি আরবে হজ্জ করতে যান স্বপরিবারে। কিন্তু বাংলাদেশের পাসপোর্ট না থাকা তারেক রহমানকে সৌদি আরব কিভাবে ভিসা দিয়েছিলো তা জানা যায়নি সেসময়ে। এই ইস্যুতে সে সময়ে বেশ আলোচনা সমালোচনাও চলতে দেখা যায়।
এদিকে তারেক রহমানের হদিস গত ৩ দিনেও মেলছেনা দেখে পাসপোর্টের বিষয়টি নতুন করে সামনে এসেছে। বিএনপি’র একটি সূত্র বলছে, বর্তমানে তিনি সৌদি আরব যাননি সেটি প্রায় নিশ্চিত। একসময়ে দুবাইয়ে অবস্থানরত মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিমের সাথে ব্যবসায়িক সুসম্পর্ক থাকার কারনে দুবাই সরকারের কাছে তদবিরের মাধ্যমে স্পেশাল পাসপোর্ট গ্রহন করেছিলেন তারেক রহমান। সূত্রটি বলছে, বর্তমানে পাকিস্তানে অবস্থানরত দাউদ ইব্রাহিম ও পাকিস্তানী গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই এর মাধ্যমে পাকিস্তানের পাসপোর্টও তারেক রহমানের সংগ্রহে ছিলো।
একই সূত্র বলছে, তারেক রহমান লন্ডন থেকে মধ্যপ্রাচ্যের একটি বিমানে চড়ে শনিবার সন্ধ্যায় দুবাইয়ের পথে রওনা হলেও সেখানে তিনি অবস্থান করবেন না। তার বর্তমান অবস্থান সূত্রটি নিশ্চিত করতে না পারলেও তারা বলছে, ঘনিষ্ট সম্পর্ক থাকা কোন রাষ্ট্র ছাড়া তারেক রহমান বর্তমানে কোথাও নিজেকে নিরাপদ মনে করেন না। সেক্ষেত্রে পাকিস্তান কিংবা মধ্যপ্রাচ্যের অন্য কোন দেশে তারেক রহমান তার একান্ত বিশেষ কোন কাজে অবস্থান করতে পারেন।
এদিকে বাংলাদেশে বিএনপি’র নেতাকর্মীদের সঙ্গে বর্তমানে যোগাযোগ রাখেন মূলত তারেক রহমান। দলের স্থায়ী কমিটির নেতাদের বিভিন্ন পরামর্শ ও নির্দেশনা প্রদান করেন তিনি। খালেদা জিয়ার গ্রেপ্তারের পর থেকেই বিএনপি মূলত চলছে তারেক জিয়ার নির্দেশ এবং সিদ্ধান্তে। গত ৩ দিনে বাংলাদেশের কোন নেতা কর্মীর সাথে তারেক রহমানের কোন যোগাযোগ হয়নি বলেও দেশরিভিউকে নিশ্চিত করেছেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন সদস্য।

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com